1. admin@pratibaderkantho.com : admin :
  2. badhsa85ja@gmail.com : badhsa :
  3. tvtista2@gmail.com : manik :
রংপুরে কেন্দ্র ভিত্তিক গণটিকাদান কেন্দ্রগুলোতে ছিল উপচে পড়া ভীড় - প্রতিবাদের কন্ঠ
বৃহস্পতিবার, ২০ জানুয়ারী ২০২২, ০২:২৬ পূর্বাহ্ন

রংপুরে কেন্দ্র ভিত্তিক গণটিকাদান কেন্দ্রগুলোতে ছিল উপচে পড়া ভীড়

শরিফা বেগম শিউলী রংপুর প্রতিনিধিঃ
  • প্রকাশকাল : শনিবার, ৭ আগস্ট, ২০২১
  • ৬৪

রংপুরে গণটিকাদান কেন্দ্রগুলোতে মানুষের উপচে পড়া ভীড় লক্ষ্য করা গেছে।অধিকাংশ কেন্দ্রেই টিকাদানের সক্ষমতার বিপরীতে দ্বিগুনেরও বেশী মানুষ লাইনে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করতে দেখা গেছে । কোথাও কোথাও কেন্দ্রে ছয়শ টিকার মজুদ শেষ হওয়ায় টিকা না নিতে পেরে অনেকে বাড়ি ফিরে গেছেন।

শনিবার(৭ আগস্ট) দুপুরে একাধিক কেন্দ্রে গিয়ে এমন চিত্র দেখা যায়।রংপুর জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, গণটিকাদানের প্রথম দিনে রংপুর জেলায় মোট ৬৫ হাজার ৪০০ জনকে টিকা দেয়া হচ্ছে। জেলার ৮টি উপজেলার ইউনিয়নগুলোতে একটি করে টিকাদান কেন্দ্রে ৩টি করে বুথ থাকবে এবং প্রত্যেকটি বুথে ২০০জন করে প্রত্যেকটি ইউনিয়নে মোট ৬০০ জন টিকা নিতে পারবে।

এছাড়া সিটি কর্পোরেশনের ৩৩ টি ওয়ার্ডে ১ টি করে টিকাদান কেন্দ্রে ৩ টি বুথে মোট ৬০০ জনকে টিকার আওতায় আনা হবে। উপজেলার বাসিন্দাদের সিনোফার্মের ৪৩ হাজার ২০০ এবং সিটি কর্পোরেশনের বাসিন্দাদের মডার্নার ২২ হাজার ২০০ শত ডোজ টিকা দেওয়া হচ্ছে। কেন্দ্রগুলোতে ৩ জন করে ভ্যাকসিনেটর, ৩ জন স্বেচ্ছাসেবক ও টিকা গ্রহণের পর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া পর্যবেক্ষণের জন্য উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার রয়েছে।

কয়েকটি কেন্দ্র ঘুরে দেখা যায়, প্রতিটি বুথের সামনে দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে টিকা গ্রহণের জন্য অপেক্ষা করছেন নারী ও পুরুষরা। কিন্তু এত পরিমানে টিকা দেওয়া সক্ষমতা না থাকায় দীর্ঘক্ষণ লাইনে দাঁড়িয়ে থাকা মানুষদের চোখে মুখে হতাশার ছাপ লক্ষ্য করা গেছে। সকাল থেকে ভ্যাপসা গরমে দীর্ঘক্ষণ লাইনে দাঁড়িয়ে থেকে অনেকে অসুস্থ্য হয়ে পড়েছেন। এদের মধ্যে বয়স্কদের সংখ্যাই বেশী।

রংপুর জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ হিরম্ব কুমার রায় বলেন, টানা ৭ দিন গণ টিকার কথা থাকলেও তা হচ্ছে না। প্রথম দিনে গণটিকাদানের পর ১৪তারিখে দ্বিতীয় দফায় গণটিকা কার্যক্রম চলবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ
error: Content is protected !!