1. admin@pratibaderkantho.com : admin :
  2. badhsa85ja@gmail.com : badhsa :
  3. tvtista2@gmail.com : manik :
আবার ৫০০কম্বল ও মাস্ক বিতরণ করলেন হিজড়া রানা - প্রতিবাদের কন্ঠ
শুক্রবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২২, ০৫:৫৫ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ সংবাদ
বাঘায় মেয়াদ উত্তীর্ণ ওষুধ রাখায় ৩ ফার্মেসীর মালিককে ১৫ হাজার টাকা জরিমানা ঝিনাইদহের হরিনাকুন্ডু উপজেলা বাসীদের সচেতন করতে পথে,পথে ঘুরছে ফিরছে হরিণাকুণ্ডুর এসিল্যান্ড জলঢাকায় শীতার্ত মানুষের পাশে ব্যারিষ্টার তুরিন আফরোজ ফাউন্ডেশন জলঢাকায় গৃহহীন ১৫০টি পরিবারের ঘর নির্মাণ কাজের উদ্বোধন। বীর মুক্তিযোদ্ধা তোফাজ্জল হোসেন তোফা’র রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন সম্পন্ন নীলফামারীতে ট্রেনে কাটা পড়ে ইপিজেডের ৪ মহিলা শ্রমিক নিহত,আহত-৫ জলঢাকায় সমলয় পদ্ধতিতে যান্ত্রিক ভাবে বোরো রোপনের উদ্ধোধন ! বীর মুক্তিযোদ্ধা তোফাজ্জল হোসেন তোফা’র মৃত্যুতে – উপজেলা চেয়ারম্যান শাহীনের শোক ঝিনাইদহের হরিণাকুণ্ডু উপজেলার বীর মুক্তযোদ্ধার রাষ্টীয় মর্যাদায় দাফন সম্পন্ন ডোমারে চারশত শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ

আবার ৫০০কম্বল ও মাস্ক বিতরণ করলেন হিজড়া রানা

শরিফা বেগম শিউলী, স্টাফ রিপোর্টার রংপুরঃ
  • প্রকাশকাল : বুধবার, ১২ জানুয়ারী, ২০২২
  • ৩২

রংপুরে আবারও হিজড়া সংগঠনের সভাপতি আনোয়ারুল ইসলাম (রানা) ৫০০ অসহায় পরিবারের মাঝে মাস্ক এবং কম্বল বিতরণ করেন। বুধবার সকাল ১১ টার সময়ে নগরীর রবার্টসনগঞ্জ মাঠে শীতবস্ত্র এবং মাস্ক বিতরণ করেন রংপুর বিভাগের হিজড়া সংগঠনের নেতা (রানা)। এর আগেও গত রবিবার নূরপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে আরো ৪০০ পিস কম্বল ও মাস্ক বিতরণ করেছেন তিনি। এছাড়াও গত ০২ জানুয়ারী নগরীর জুম্মাপাড়ার এক হার্টের রোগীকে চিকিৎসার জন্য নগদ ২৫,০০০/- (পঁচিশ হাজার) টাকা অর্থ সহায়তা করেন রানা ।

এসময়ে উপস্থিত থেকে হিজড়া সংগঠনের সভাপতি আনোয়ারুল ইসলাম (রানা) বলেন, অমি ছোটবেলা যখন নিশ্চিত হয়েছি যে, আমি একজন তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ। আমার কখনো সংসার/সন্তান হবে না। তখন থেকে আমি নিজেকে মানুষের সেবায় উৎসর্গ করে দিয়েছি। আমি ১২ বছর পূর্বে আমার মতো ৩৭০ জন সদস্যকে নিয়ে ন্যায় অধিকার তৃতীয় লিঙ্গ উন্নয়ন সংস্থা রংপুর নামে একটি সংগঠন প্রতিষ্ঠা করি। ৩৭০জন সদস্যের মধ্যে ১৫০ জনকে সমাজ সেবার মাধ্যমে বিভিন্ন ট্রেনিং প্রশিক্ষন করিয়েছি। প্রশিক্ষনের পর প্রায় ২০ জন হিজড়া সদস্য ভিক্ষা বৃত্তি থেকে বেড়িয়ে কর্মমূখী হয়ে সুষ্ঠু জীবন যাপন করছে। আশা করি আমাদের সবাই একদিন ভিক্ষা বৃত্তি থেকে বেড়িয়ে কর্মমূখী হয়ে মাথা উচু করে বাঁচবে। আমি সেই লক্ষে কাজ করে যাচ্ছি।

পাশাপাশি আমি প্রতিবছর ঈদে আমার সামর্থ অনুযায়ী শাড়ী/লুঙ্গি এবং দূর্ভোগের সময়ে খাদ্য সহায়তা অসহায় মানুষে মাঝে বিলিয়ে দেই। মানুষের সেবা করতে পারলে আমার খুব আনন্দ অনুভব হয়। সারা জীবন যেন মানুষের সেবা করে যেতে পারেন, সেজন্য সকলের কাছে দোয়া চেয়েছেন রানা ।

তিনি আরো বলেন, প্রিয় রংপুরকে আমি একটি আধুনিক এবং পরিবেশ বান্ধব নগরী হিসেবে গড়ে তুলতে চাই। জনগণ যদি আমাকে সমর্থণ করে, তাহলে এবার রংপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে আমি অংশ গ্রহণ করবো।

আনোয়ারুল ইসলাম রানার মা জুলেখা বেগম বলেন, রানাকে নিয়ে সমাজের কিছু মানুষের অনেক রকম কটুকথা শুনতে হয়। রানা নিজে অবহেলিত হবার পরেও সমাজের মানুষের কথা ভাবে। ছোট থেকে দুখী মানুষের পাশে দাড়ায়। এমন সন্তানের মা হয়ে আমি নিজেকে গর্ববোধ করি।

সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম বলেন, আনোয়ারুল ইসলাম রানা’র মতো একজন ভাল মানুষ আমাদের সভাপতি হিসেবে পেয়ে আমরা খুব খুঁশি। সভাপতি একজন পরোপকারী মানুষ। তিনি বরাবর আমাদের পাশাপাশি সাধারণ মানুষেরও উপকার করে আসছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ
error: Content is protected !!